Main Menu

ছবি ফ্লপের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বলিউডের জনপ্রিয় তারকা আমির খান

বহুল আলোচিত ‘থাগস অব হিন্দোস্থান’ ছবি ফ্লপের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন বলিউডের জনপ্রিয় তারকা আমির খান। অমিতাভ বচ্চনের পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এ ছাড়া ছবিতে অভিনয় করেছেন ক্যাটরিনা কাইফ ও ফাতিমা সানা শেখের মতো অভিনয়শিল্পীরা। তবে কেন সব দায় নিজের কাঁধে নিলেন আমির খান?

বেশির ভাগ দর্শক জানিয়েছেন, ‘থাগস অব হিন্দোস্থান’ তাঁদের ভালো লাগেনি। তবে অনেকেই বলছেন ছবিটি তাঁদের ভালো লেগেছে। আয়ের দিকে তাকালে দেখা যায়, খরচের অর্থ তুলতে পারেনি ছবিটি। অথচ বলিউডে কথিত আছে, আমির খানের ছবি ফ্লপ হয় না। ক্যারিয়ারের প্রায় সব ছবিই ছিল সুপারহিট। নতুন করে ফ্লপের তালিকায় ঢুকল আরও একটি ছবি। এর আগে আমির অভিনীত ২০০৫ সালের ছবি ‘মঙ্গল পাণ্ডে’ নিয়ে তেমন ভালো প্রতিক্রিয়া আসেনি। আবার ১৩ বছর পর তবে আমিরের সেই অমঙ্গল ফিরে এল? আমিরের ওপর আস্থা রাখা ভক্ত-দর্শকদের কাছে তাই ক্ষমা চেয়েছেন তিনি নিজেই। এক সাক্ষাৎকারে আমির বলেছেন, ‘ছবিটা খারাপ হওয়ার সব দায় আমার। আমার মনে হয়, আমরা কোনো ভুল করেছিলাম, কিন্তু সেই দায়টা আমিই নিচ্ছি। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি। কিন্তু কিছু ভুল নিশ্চয়ই ছিল। যে কারণে অল্প কিছু মানুষের কাছে ছবিটি ভালো লাগলেও, বেশির ভাগ দর্শক ছবিটি পছন্দ করেননি। “থাগস অব হিন্দোস্থান” যাঁদের ভালো লেগেছে, তাঁদের ধন্যবাদ। যাঁদের ভালো লাগেনি, তাঁদের প্রতিক্রিয়া থেকে আমাদের উপলব্ধি হয়েছে, আমরা তাঁদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি। আমি দুঃখিত, আমি তাঁদের বিনোদন দিতে পারিনি।‘থাগস অব হিন্দোস্থান’ নির্মাণে খরচ হয় প্রায় তিন শ কোটি রুপি। অথচ এখন পর্যন্ত ছবি থেকে আয় হয়েছে মাত্র দেড় শ কোটি রুপি। ছবির ট্রেলার মুক্তির পর অনেকেই বলেছিলেন, ছবিটি হতে যাচ্ছে ‘পাইরেট অব দ্য ক্যারিবিয়ান’-এর নকল। এ ছাড়া ছবির গ্রাফিকস সম্পাদনার দুর্বলতার কথাও উল্লেখ করেন অনেকে। আমির খান মনে করেন, এ ছবি নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। তারপরও দেওয়ালিতে মুক্তির পর অনেক দর্শক ছবিটি দেখেছেন।