Main Menu

ইজতেমা ৭ থেকে ১১ ডিসেম্বর

আগামী ৭ ডিসেম্বর ৫দিন ব্যাপী ‘জোড় ইজতেমা’ শুরু হতে যাচ্ছে। ইজতেমা মাঠের সার্বিক প্রস্তুতি ও ইজতেমা উপলক্ষে দাওয়াত ও তাবলিগের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য মূলত এ জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। শুধুমাত্র আলেম-ওলামা ও তাবলিগে তিন চিল্লা সম্পন্নকারীরা এ জোড়ে অংশ গ্রহণ করতে পারেন।

অন্যান্য বারের মতো এ বছরও ওলামায়ে কেরাম ও বাংলাদেশের তাবলিগের মারকাজ কাকরাইলের আলেম মুরব্বিদের ব্যবস্থাপনায় এ জোড় অনুষ্ঠিত হবে। জোড় ৭ ডিসেম্বর শুরু হয়ে ১১ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হবে।

জোড় ইজতেমা প্রসঙ্গে কাকরাইল মসজিদের মুরুব্বি মাওলানা শাহরিয়ার মাহমুদ জানান, বাংলাদেশে ইজতেমার ইতিহাসের শুরু থেকে এ জোড় হয়ে আসছে। আগে ১০দিনের হতো। পরবর্তী সময়ে ৫ দিনের করা হয়েছে। সে সূত্রে এবারও যথা সময়ে জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হবে ইনশাআল্লাহ।

বিশ্ব ইজতেমার ৪০ দিন আগে সাধারণত জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ব ইজতেমার সফলতার জন্য পরামর্শ ও দিক-নির্দেশনা দেওয়া হয়। দেশের সর্বস্তরে আলেম-ওলামারা এবারও বিশ্ব ইজতেমার সামগ্রিক আয়োজন ও ব্যবস্থাপনায় কাকরাইল মারকাজের আলেম-মুরব্বিদের সঙ্গে থাকছেন।

এবারের (২০১৯ সাল) টঙ্গির বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব ১৮, ১৯ ও ২০ জানুয়ারি এবং দ্বিতীয় পর্ব ২৫, ২৬ ও ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।